Home জাতীয় দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৫ ইউপিতে ভোটগ্রহণ চলছে

দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৫ ইউপিতে ভোটগ্রহণ চলছে

371
0
SHARE

সারাদেশে দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। যা চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

এই ধাপে ২৬টি ইউপিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এবং বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে।

দেশের দশম ইউপি নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮টি ইউপির তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু পরে তালিকা থেকে একটি ইউপি বাদ দেওয়া হয়। স্থগিত করা হয় সাতটি ইউপির ভোট। এছাড়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পাঁচটি ইউপির সবাই নির্বাচিত হন।

উৎসবমুখর পরিবেশে এই নির্বাচন হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা। তিনি জানান, নির্বাচনি সহিংসতা কঠোর হাতে দমন করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ইসি’র দেওয়া তথ্যমতে, দ্বিতীয় ধাপে চেয়ারম্যান পদে ৮১, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৭৩ এবং সাধারণ সদস্য পদে ২০৩ জন বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

ইসি’র যুগ্মসচিব ও পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান জানান, এসব ইউপিতে ভোটকেন্দ্র ৮ হাজার ৪৯২টি। মোট ভোটার ১ কোটি ৬৫ লাখ ৯৫ হাজার ২২৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৮৪ লাখ ৫ হাজার ৮৩১ জন এবং মহিলা ভোটার ৮১ লাখ ৮৯ হাজার ৩৭৯ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ১৬ জন। চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩ হাজার ৩১০, সংরক্ষিত ৯ হাজার ১৬১ এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৮ হাজার ৭৪৭ জন প্রার্থী রয়েছেন। তিন পদে মোট প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন ৪১ হাজার ২১৮ জন প্রার্থী।

ইসি’র নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখা জানিয়েছে, ভোটগ্রহণ উপলক্ষে কেন্দ্র পাহারায় নিয়োজিত রয়েছে ২০ জনের ফোর্স। নির্বাচনি অপরাধের বিচার ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় নিয়োজিত রয়েছে ৬৭০ জন বিচারিক ও নির্বাহী হাকিম। এছাড়াও পুলিশ, আনসার, বিজিবি, র‌্যাব ও কোস্ট গার্ডের ভ্রাম্যমাণ ও স্ট্রাইকিং ফোর্স দায়িত্ব পালন করছে।

এই ধাপের ভোট উপলক্ষে মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাত (রাত ১২টা) থেকে ১২ নভেম্বর (শুক্রবার) ভোর ৬টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইসি। বুধবার (১০ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর মধ্যরাত) পর্যন্ত সকল যন্ত্রচালিত যান (ইসির অনুমতি প্রাপ্ত যানবাহন ব্যতিত) চলাচল বন্ধ থাকবে। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সব ধরণের প্রচার-প্রচারণায়। নির্বাচনের ফলাফল গেজেট আকারে প্রকাশের আগ পর্যন্ত কোনো মিছিল, শোভাযাত্রা করা যাবে না।